December 8, 2019

আমদানি করে হলেও মালদ্বীপে পেঁয়াজ পাঠাচ্ছে ভারত: বাংলাদেশে রপ্তানি করতে অজুহাত

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বৃষ্টি-বন্যায় পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে মূল্যবৃদ্ধির কথা বলে গত মাস থেকেই বাংলাদেশে পণ্যটির রপ্তানি সম্পূর্ণ বন্ধ রেখেছে ভারত। নিজেদের চাহিদা পূরণে কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানিও করছে তারা। অথচ, এ অবস্থার মধ্যেই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে দক্ষিণ এশিয়ারই আরেকটি দেশ মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি করছে তারা।

রোববার (১০ নভেম্বর) মালের ভারতীয় দূতাবাস এক টুইটে তাদের ‘মালদ্বীপীয় বন্ধুদের’ জানায়, পেঁয়াজ সংকটের কারণে এক লাখ টন আমদানি ও মূল্যবৃদ্ধি সত্ত্বেও ভারত মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি অব্যাহত রাখবে।

সোমবার (১১ নভেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, মালদ্বীপ তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের জন্য প্রায় পুরোটাই ভারতের ওপর নির্ভরশীল। এজন্য মোদী সরকার আগের মতোই পেঁয়াজসহ অন্য সব পণ্য দ্বীপ দেশটিতে রপ্তানি অব্যাহত রাখছে। 

গত শনিবার (৯ নভেম্বর) ভারতের খাদ্যমন্ত্রী রাম বিলাস পস্বন জানিয়েছিলেন, চলমান সংকটের কারণে ভারত এক লাখ টন পেঁয়াজ বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করছে।

ভারত পেঁয়াজ পাঠানোয় নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পর আফগানিস্তান, তুরস্ক, ইরান ও মিসর থেকে পেঁয়াজ আমদানির চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। ভারতও এসব দেশ থেকেই পেঁয়াজ আমদানি করে তা আবার মালদ্বীপে রপ্তানি করবে।

গত মাসে ভারত হঠাৎ করেই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিলে দেশের বাজারে হু হু করে বাড়তে থাকে এর দাম। এ নিয়ে তৈরি হয় নানা আলোচনা। অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরকালেও এ বিষয়টি ছিল আলোচনার শীর্ষে। সেখানে এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী অনেকটা রসিকতা করেই বলেছিলেন, পেঁয়াজ নিয়ে আমাদের সামান্য সমস্যা হয়ে গেলো। আমি জানি না, কেন আপনারা পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছেন। কিন্তু, আমি আমার রাঁধুনীদের বলে দিয়েছি, এখন থেকে রান্নায় পেঁয়াজ দেওয়াই বন্ধ করে দাও।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *